আলমডাঙ্গায় বিয়ের দাবিতে চাচা শ্বশুরের বাড়িতে গৃহবধূর অনশন


আজকের চুয়াডাঙ্গা➤ আলমডাঙ্গা প্রতিবেদক প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ১১, ২০২৩, ৯:৫৬ অপরাহ্ণ
আলমডাঙ্গায় বিয়ের দাবিতে চাচা শ্বশুরের বাড়িতে গৃহবধূর অনশন

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় বিয়ের দাবিতে চাচা শ্বশুরের বাড়িতে দুদিন ধরে অনশনে বসেছেন সামসুর নাহার (২৭) নামের এক গৃহবধূ। বিয়ে না করলে আত্মহত্যা করবেন বলে হুমকি দিচ্ছেন ওই নারী। তবে অনশনের খবর পেয়ে এলাকা ছেড়ে পালিয়েছেন চাচা শ্বশুর রুহুল আমিন (৩৭)।

গত রোববার (১০ ডিসেম্বর) রাত ১০টা থেকে সোমবার (১১ ডিসেম্বর) দুপুর পর্যন্ত উপজেলার বেলগাছি পূর্বপাড়া গ্রামে রুহুল আমিনের বাড়িতে অবস্থান করছিলেন সামসুর নাহার।

স্থানীয়রা জানান, সামসুর নাহারের বেলগাছি বাজার এলাকার প্রবাসী শরিফুল ইসলামের সাথে পারিবারিক বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের স্কুলপড়ুয়া দুই ছেলে ও মেয়ে রয়েছে। সামসুর নাহারের স্বামী কুয়েত প্রবাসী হওয়ায় চাচা শ্বশুর সুবাদে রুহুল আমিনের অবাধ যাতায়াত ছিল। এক পর্যায়ে সামসুর নাহার ও রুহুল আমিনের মধ্যে পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

গত তিন দিন আগে গভীর রাতে বাড়ির পেছনে রুহুল আমিনের সঙ্গে ‘শারীরিক’ সম্পর্ক হয় সামসুর নাহারের। স্ত্রীর অবৈধ এমন মেলামেশা নিজ চোখে দেখে ফেলেন স্বামী শরিফুল ইসলাম। ইতিপূর্বে তাদের অবৈধ সম্পর্কে মেলামেশার আগে তার স্বামী শরিফুলকে ঘুমের ওষুধ খাওয়াতেন সামসুর নাহার।

পরে স্ত্রীর সঙ্গে আর সংসার করবেন না বলে জানান তিনি। এ ঘটনার পর সামসুর নাহার বিয়ের দাবিতে চাচা শ্বশুর রুহুল আমিনের বাড়িতে অনশনে বসেন। এ ঘটনার পর থেকে রুহুল আমিন পলাতক রয়েছেন।

সামসুর নাহার বলেন, ‘রুহুল সম্পর্কে আমার চাচা শ্বশুর। প্রেমের ফাঁদে ফেলে সে আমার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেছে। বিষয়টি আমার স্বামী নিজ চোখে দেখেছে। তাই আমার সংসার ভেঙে গেছে। বিষয়টি সে নিজেও জানে। তার কথা মতেই আমি বাড়ি থেকে তার বাড়িতে বিয়ের জন্য এসেছি। সে ফাঁকি দিয়ে ঢাকায় চলে গেছে। সে কারণে এখন আমি বিয়ের দাবিতে রুহুলের বাড়িতে অনশন করছি। বিয়ে না করলে তার ঘরেই আত্মহত্যা করব।’

রুহুলের বড় বোন বলেন, ‘বিয়ের জন্য রোববার রাত থেকে আমাদের ঘরে অবস্থান করছে সামসুর নাহার। আমার ভাইয়ের বউ ও ছেলে রয়েছে। সে ঢাকাতে ঠিকাদারি কাজ করে। সামসুর নাহার ফাঁদে ফেলে এখন বিয়ের জন্য বসে রয়েছে।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমার ভাই বাড়িতে না আসায় এ বিষয়ে কোনো সুরাহা হচ্ছে না। মেয়েটিকে নিয়ে এখন আমরা বিপদে আছি।’

আজকের চুয়াডাঙ্গা এর সংবাদ সবার আগে পেতে Follow Or Like করুন আজকের চুয়াডাঙ্গা এর ফেইসবুক পেজ এ , আজকের চুয়াডাঙ্গা এর টুইটার এবং সাবস্ক্রাইব করুন আজকের চুয়াডাঙ্গা ইউটিউব চ্যানেলে