বিশ্বকাপে প্রথম লঙ্কা জয়, ক্রিকেটে প্রথম টাইমড আউট


আজকের চুয়াডাঙ্গা➤ স্পোর্টস ডেস্ক প্রকাশের সময় : নভেম্বর ৭, ২০২৩, ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ
বিশ্বকাপে প্রথম লঙ্কা জয়, ক্রিকেটে প্রথম টাইমড আউট

বাংলাদেশের সামনে ২৮০ রানের জয়ের লক্ষ্য রেখেছে শ্রীলঙ্কা৷ ম্যাচে প্রথমবারের মত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট দেখল ‘টাইমড আউট’৷

৫৩ বল হাতে রেখে পাওয়া জয়ে বাংলাদেশ টিকিয়ে রেখেছে বিশ্বকাপে শীর্ষ আটে থেকে ২০২৫ সালে আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে খেলার আশা।

প্রায় মাস দেড়েক লম্বা ওয়ানডে বিশ্বকাপের শেষ পক্ষ শুরু হলেও নখ কামড়ানো রোমাঞ্চের দেখা মিলেছে হাতে গোণা কিছু ম্যাচে। আজকের ম্যাচটিও কোনো বিচারেই টুর্নামেন্টের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কিছু ছিল না, শেষ দিকে কিছু উইকেট বিলিয়ে বাংলাদেশ দল যথেষ্ট চেষ্টা করলেও ম্যাচটি রোমাঞ্চকর ছিল এ কথা বলা যাবে না৷ কিন্তু রেকর্ড খাতায় তো বটেই, দুনিয়াজুড়ে ভক্তদের মনেও ম্যাচটি অনেকদিন জ্বলজ্বল করবে৷ কারণ, কোনো বল না খেলেই অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের আউট হয়ে যাওয়া-যার নাম টাইমড আউট৷ বই-খাতায় থাকলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট যে, এই আউট দেখলো প্রথমবার৷

৮০ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভাল হয়নি বাংলাদেশের। দলীয় মাত্র ১৭ রানেই কভারে নিশাঙ্কার হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন ৯ রান করা তানজিদ তামিম। ওয়ান-ডাউনে নামা নাজমুল হোসেন শান্তর সঙ্গে ২৫ বলে ২৪ রানের ছোটখাট একটা জুটি গড়ার পর বিদায় নেন আরেক ওপেনার লিটন দাসও। দুটো উইকেটই তুলে নেন দিলশান মাদুশঙ্কা। চারে ব্যাট করতে নামেন সাকিব। শুরু থেকেই অধিনায়ককে ব্যাট হাতে মনে হচ্ছিল আত্মবিশ্বাসী। শান্ত আর সাকিব দুজনে মিলে তৃতীয় উইকেটে ১৪৯ বলে ১৬৯ রানের জুটি গড়ে বাংলাদেশকে স্বস্তিদায়ক অবস্থানে পৌঁছে দেন। বিশ্বকাপে এটা বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের জুটি।

শতরানের আশা জাগিয়েছিলেন দুজনেই, কিন্তু কেউই পৌঁছাতে পারেননি তিন অংকে। দুজনকেই বিদায় করেছেন ম্যাথুস। প্রথমে বিদায় নেন সাকিব, ম্যাথুসের সোজা আসা অফকাটার-স্লোয়ারটা ধরতে পারেননি। ফ্লিক খেলতে গিয়ে ‘মিস-টাইমড’ শট খেলে বল তুলে দেন মিড-অফে দাঁড়ানো আসালাঙ্কার হাতে। ১২ বাউন্ডারি আর দুই ছক্কায় ৬৫ বলে ৮২ রানের ইনিংস খেলে বিদায় নেন সাকিব, এই বিশ্বকাপে এটাই সাকিবের প্রথম পঞ্চাশ পেরোনো ইনিংস। ম্যাথুসের পরের ওভারে আউট হয়ে যান শান্তও। আড়াআড়ি সিমে করা বলটায় উইকেটের পেছনে খেলতে গিয়ে বল টেনে আনেন স্টাম্পে। এক ডজন চারের মারে ১০১ বলে ৯০ রান করে বিদায় নেন শান্ত, পাওয়া হয়নি বিশ্বকাপে সেঞ্চুরি।

দ্রুত দুই উইকেটের পতনে ক্রিজে আসা মুশফিকুর রহিম এবং মাহমুদউল্লাহর সামনে সুযোগ ছিল ম্যাচটা শেষ করে আসার। হতাশ করেছেন দুজনেই। ২২ রান করে মাহেশ থিকশানার বলে বোল্ড হয়েছেন মাহমুদউল্লাহ, ১০ রান করে মাদুশাঙ্কার বলে বোল্ড মুশফিক। এই সময়ে শ্রীলঙ্কা জয়ের আশা জাগিয়ে তুললেও সাত বলে দুই ছক্কায় তৌহিদ হৃদয়ের ১৫ রান দ্রুত হারজিতের ব্যবধান কমিয়ে আনে। মেহেদি হাসান মিরাজ মাত্র তিন রান করে আউট হলেও তাই সমস্যা হয়নি, তানজিম সাকিবের পাঁচ রানের ইনিংসের পাশাপাশি শেষ দিকে দুটো লেগ-বাই বাউন্ডারিতে জয় নিশ্চিত হয় বাংলাদেশের। ৮২ রান এবং দুই উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা সাকিব।

দিল্লিতে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা যখন মুখোমুখি, তখন দুই দলই সেমিফাইনালের হিসেব থেকে ছিটকে গেছে। অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে টস করতে নামার ঘণ্টা পাঁচেক আগে, শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটাররা জানতে পেরেছেন যে দেশের ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচিত কমিটিকে দুর্নীতি ও অযোগ্যতার কারণে ভেঙ্গে দিয়েছে ক্রীড়া মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশেও সাত ম্যাচে ছয় হারের পর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের অদক্ষতা এবং দুর্নীতির দিকেই আঙুল উঠছে। বিশ্বকাপের নিছকই নিয়মরক্ষার ম্যাচ, সেই ম্যাচটাই আলোচনায় চলে এল অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের অদ্ভুতুড়ে আউটের সুবাদে। এই ম্যাচেই যে প্রথমবারের মত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টাইমড আউট হলেন কোন ব্যাটসম্যান। তবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অতীতে এই আইনের প্রয়োগে ছয় জন ব্যাটসম্যান আউট হয়েছেন।

ম্যাচের ২৫তম ওভারের খেলা চলছে তখন। বল করছিলেন সাকিব আল হাসান, ব্যাটিংয়ে সাদেরা সামারাবিক্রমা। আগের বলে চার মারার পর ছয়ের খোঁজে উড়িয়ে মেরেছিলেন এই শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যান,ডিপ স্কয়ার লেগে ধরা পড়লেন মাহমুদউল্লাহ’র হাতে। পরের ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে আসেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। কিন্তু উইকেটে এসে স্টাম্পের সামনে পরের বলটা খেলার জন্য প্রস্তুত হয়ে না দাঁড়িয়ে নিজের হেলমেটটা ঠিক করছিলেন। তাতে বেশ খানিকটা সময় লাগছিল, ম্যাথুস সংকেত দেন অন্য একটা হেলমেট নিয়ে আসার। সময়ক্ষেপণ হওয়াতে সাকিব আম্পায়ারের কাছে আবেদন করেন, আম্পায়ার মারাইয়াস এরাসমুস তখন আউটের সংকেত জানান। অসন্তোষ নিয়ে মাঠ ছাড়েন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, কোন বল না খেলেই শূন্য রানে আউট হয়ে ইতিহাসের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টাইমড আউট হয়েছেন শ্রীলঙ্কার এই অলরাউন্ডার। এভাবে ইতিহাসের অংশ হতে নিশ্চয়ই চাননি তিনি!

ক্রিকেটের আইনপ্রণেতা এমসিসি (মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাব) এর ওয়েবসাইটে টাইমড আউট এর সংজ্ঞা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘ একজন ব্যাটসম্যান আউট হবার পর, বিরতির সংকেত দেয়া না হলে পরবর্তী ব্যাটসম্যানকে তিন মিনিট সময়ের মধ্যে পরের বলটি খেলার জন্য তৈরি হতে হবে। অন্যথায় ব্যাটসম্যানকে টাইমড আউট ঘোষণা করা হবে’। আইসিসির এই বিশ্বকাপের প্লেয়িং কন্ডিশনে বিরতিটা কমিয়ে আনা হয়েছে দুই মিনিটে। অর্থাৎ একজন ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার দুই মিনিটের ভেতর পরের ব্যাটসম্যানকে এসে পরের বলটি খেলার জন্য তৈরি হতে হবে। সামারাবিক্রমা আউট হওয়ার সময় স্থানীয় সময় ছিল দুপুর ৩টা ৪৯ মিনিট,ম্যাথুসকে আউট ঘোষণা করা হয় ৩টা ৫৪ মিনিটে। অর্থাৎ আম্পায়াররা তাকে নির্ধারিত সময়ের চেয়ে বেশি সময়ই দিয়েছিলেন তৈরি হতে, কিন্তু ম্যাথুস সেই সময়েও তৈরি হতে পারেননি এবং আম্পায়াররাও খেলা শুরু করতে পারেননি। তাই সাকিবের আবেদনে সাড়া দিয়ে নিয়ম মেনেই আউট দিয়েছেন এরাসমাস। ম্যাথুসকে মাঠে সাকিবের সঙ্গে আলাপ করতেও দেখা যায় তবে সাকিব সম্ভবত ব্যপারটা আম্পায়ারদেরই সিদ্ধান্ত এমন ইঙ্গিতই করেছেন বলে দূর থেকে দেখে মনে হয়েছে। এই আউটের পর অসন্তোষ নিয়ে মাঠ ছেড়ে সীমানা দড়ি অতিক্রম করেই হেলমেট ছুঁড়ে ফেলেছেন ম্যাথুস। দলের কোচ এবং সহায়ক কর্মকর্তাদের সঙ্গেও তাকে উত্তেজিত বাক্যবিনিময় করতে দেখা গেছে।

টসে জিতে বোলিং নিয়েছিলেন সাকিব। শরিফুল ইসলামের বলে মুশফিকুর রহিমের উড়ন্ত ক্যাচে প্রথম ওভারের শেষ বলেই কুশল পেরেরার উইকেটের দেখা পায় বাংলাদেশ। এরপর দ্বিতীয় উইকেট জুটি স্থায়ী হয় ১০ ওভারের মত, ১২তম ওভারে এসে পাথুম নিশাঙ্কা আর কুশল মেন্ডিসের ৬১ রানের জুটি ভাঙ্গেন সাকিব। মোস্তাফিজুর রহমানের জায়গায় একাদশে ঢোকা তানজিম হাসান সাকিবের হয় বিশ্বকাপে অভিষেক, ৩৬ বলে ৪১ রান করা নিশাঙ্কাকে বোল্ড করে প্রথম বিশ্বকাপ উইকেটের দেখা পান এই পেসার। সামারাবিক্রমা আর চারিথ আসালাঙ্কা চতুর্থ উইকেটে বেশ সামলেই খেলছিলেন। পরপর দুই বলে দুই উইকেটের পতনে রান তোলার গতি কমে আসে শ্রীলঙ্কার। এরপর ধনঞ্জয় ডি সিলভাকেও (৩৪) স্টাম্পড করেন মেহেদি হাসান মিরাজ।
অন্যপ্রান্তে নিয়মিত উইকেট পতনের মাঝে একটা প্রান্ত আগলে রেখেছেন চারিথ আসালাঙ্কা। প্রায় বছর দেড়েক পর ওয়ানডেতে নিজের দ্বিতীয় শতরানের দেখা পেয়েছেন এই মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান। ৬ বাউন্ডারি এবং ৫ ছক্কায় ১০৫ বলে ১০৮ রানের ইনিংস খেলে শ্রীলঙ্কার ইনিংসটা বড় করেছেন আসালাঙ্কা। তার বিদায়ের পর বাকি ব্যাটসম্যানরা আসা যাওয়া করতে খুব একটা সময় নেননি। অষ্টম ব্যাটসম্যান হিসেবে ৪৯তম ওভারে দলীয় ২৭৮ রানে আউট হয়েছেন আসালাঙ্কা, বাকি দুই ব্যাটসম্যান মিলে যোগ করেছেন আর মাত্র এক রান। ৪৯.৩ ওভারে ২৭৯ রানে অলআউট হয়েছে শ্রীলঙ্কা। ১০ ওভারে ৮০ রানে তিন উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের সেরা বোলার তানজিম সাকিব, জোড়া শিকার শরিফুল এবং সাকিবের।

শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে দ্বিতীয় জয়ের দেখা পেল বাংলাদেশ, সেই সঙ্গে রানরেটেও পেছনে ফেলল শ্রীলঙ্কাকে। এই মুহূর্তে -১.১৪২ রান রেট নিয়ে পয়েন্ট তালিকায় বাংলাদেশ সপ্তম, বিশ্বকাপের শীর্ষ আট দল খেলবে ২০২৫ সালের আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে।

আজকের চুয়াডাঙ্গা এর সংবাদ সবার আগে পেতে Follow Or Like করুন আজকের চুয়াডাঙ্গা এর ফেইসবুক পেজ এ , আজকের চুয়াডাঙ্গা এর টুইটার এবং সাবস্ক্রাইব করুন আজকের চুয়াডাঙ্গা ইউটিউব চ্যানেলে