মহেশপুরে ভাগ্নে হত্যার দায়ে মামার ফাঁসি!


আজকের চুয়াডাঙ্গা➤ ঝিনাইদহ প্রতিবেদক প্রকাশের সময় : অক্টোবর ৩০, ২০২৩, ১১:৫৯ অপরাহ্ণ
মহেশপুরে ভাগ্নে হত্যার দায়ে মামার ফাঁসি!

ঝিনাইদহের মহেশপুরে ভাগ্নে হত্যার দায়ে মামা আব্দুল জলিল সরকারের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে আসামিকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। সোমবার (৩০ অক্টোবর) দুপুরে ঝিনাইদহের জেলা ও দায়রা জজ নাজিমুদ্দৌলা এই রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আব্দুল জলিল সরকার মহেশপুর উপজেলার ঘুগরি পান্তাপাড়া গ্রামের দেলোয়ার হোসেন ওরফে দলু সরকারের ছেলে। ঘটনার পর থেকেই আব্দুল জলিল পলাতক রয়েছেন। ২০১৩ সালের ১০ আগস্ট রাতে আব্দুল জলিল সরকার তার ভাগ্নে সাইদুর রহমান রানাকে কুপিয়ে হত্যা করেন।

মামলায় রায় সূত্রে জানা গেছে, রানার মা শিখা বেগমের সঙ্গে বাবা রইচ উদ্দীনের ছাড়াছাড়ি হয়ে গেলে রানা তার নানার বাড়িতে বসবাস করত। এ কারণে নানা তার নামে কিছু জমি লিখে দেন। এদিকে ভাগ্নে সাইদুর রহমান রানাকে জমি দেওয়া নিয়ে মামা আব্দুল জলিল সরকার তারা বাবা দেলোয়ার হোসেন দলুকে প্রায় মারধর করত। ঘটনার দিন রাতেও বাবাকে মারধর করে ভাগ্নে সাইদুর রহমান রানাকে খুঁজতে থাকেন জলিল। এসময় ভাগ্নে রানা বাজার থেকে নানা বাড়ি ফিরছিলেন।

জলিল সরকার কিছু বুঝে ওঠার আগেই রানাকে কুপিয়ে আহত করেন। পরে প্রতিবেশীরা মুমূর্ষু অবস্থায় রানাকে উদ্ধার করে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করে। অবস্থা আশঙ্কাজনক হয়ে পড়লে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে রানার মৃত্যু ঘটে।

এ ঘটনায় তার বাবা শিবানন্দপুর গ্রামের রইচ উদ্দীন বাদী হয়ে শ্যালক আব্দুল জলিল সরকারকে আসামি করে মহেশপুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মহেশপুর থানার এসআই রইচ উদ্দীন মামলা তদন্ত শেষে ২০১৪ সালের ২৫ জুলাই আদালতে চার্জশিট দেন। আদালত ১৬ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে এ রায় ঘোষণা করেন।

সরকার পক্ষে পিপি অ্যাড. ইসমাইল হোসেন বাদশা ও আসামি পক্ষে স্টেট ডিফেন্স আইনজীবী টিপু সুলতান মামলাটি পরিচালনা করেন। ঘটনার পর থেকেই মামা আব্দুল জলিল সরকার পলাতক রয়েছেন। ফলে তার অনুপস্থিতিতে বিচার কাজ সম্পন্ন করা হয়।

আজকের চুয়াডাঙ্গা এর সংবাদ সবার আগে পেতে Follow Or Like করুন আজকের চুয়াডাঙ্গা এর ফেইসবুক পেজ এ , আজকের চুয়াডাঙ্গা এর টুইটার এবং সাবস্ক্রাইব করুন আজকের চুয়াডাঙ্গা ইউটিউব চ্যানেলে