জীবননগরে শাক তুলতে মাঠে যাওয়া শিশুকে ধর্ষণের পর গলা কেটে হত্যা


আজকের চুয়াডাঙ্গা➤ জীবননগর প্রতিবেদক প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২১, ২০২৩, ৫:৫৪ অপরাহ্ণ
জীবননগরে শাক তুলতে মাঠে যাওয়া শিশুকে ধর্ষণের পর গলা কেটে হত্যা

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে মরিয়ম বেগম (১১) নামের এক শিশুকে ধর্ষণের পর গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (২১ ডিসেম্বর) দুপুরে উপজেলার গোয়ালপাড়া মাঠে এই হত্যার ঘটনা ঘটে। মরিয়ম গোয়ালপাড়া দক্ষিণ নতুন মসজিদপাড়ার বাসিন্দা ইকবাল মণ্ডলের মেয়ে।

মরিয়মের মা জোবেদা বেগম বলেন, ‘আমি বাড়ি ছিলাম। ১১টার দিকে ছোট বোন আর পাশের বাড়ির তিনজনের সঙ্গে ময়রম মাঠে শাক তুলতে গিয়েছিল। দুপুরে ওরা এসে বলে ময়রমকে পাচ্ছে না। একজন ময়রমকে ভুট্টার মধ্যে নিয়ে গেছে। সঙ্গে সঙ্গে আমরা মাঠে চলে আসি। মাঠে খুঁজতে খুঁজতে এসে দেখি ভুট্টার মধ্যে ময়রমের লাশ পড়ে রয়েছে। গলা কাটা, গায়ে শুধু গেঞ্জি।’

মরিয়মের দাদি জাহানারা বেগম বলেন, ‘মেয়ে দুটি মসজিদে ছিল। মসজিদ থেকে এসে মাকে বলল ভাত দিতে। ভাত খেয়ে শাক তুলতে যাবে। একটু পর পাশের বাড়ির শফিকুলের মেয়ে এসে ময়রমকে বলছিল তাড়াতাড়ি খেয়ে শাক তুলতে যাবে। আমি আবার বলছি, মদু কার সঙ্গে যাবি। বলল তারা কয়জনই যাবে। বলে তারা চলে যায়।

দুপুরের দিকে তিনজন কানতে কানতে এসে বলছে ময়রমকে পাচ্ছে না। একজন ময়রমকে ভুট্টার মধ্যে নিয়ে গেছে। তার মুখে তিল ছিল। আমরা তখন ভাত রান্না ফেলে ভুট্টার মধ্যে গিয়ে দেখি ময়রম চিত হয়ে পড়ে রয়েছে। গায়ে খালি গেঞ্জি ছিল।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় সীমান্ত ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ইশাবুল ইসলাম মিল্টন বলেন, ধারণা করা হচ্ছে ওই শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে।

ঘটনাস্থলে সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা সার্কেল) জাকিয়া সুলতানা, জীবননগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবীদ হাসান বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত ছিলেন। তবে তাঁরা এ ঘটনায় কোনো বক্তব্য দেননি। ঘটনাস্থলে চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার আসবে বলে জানা গেছে।

আজকের চুয়াডাঙ্গা এর সংবাদ সবার আগে পেতে Follow Or Like করুন আজকের চুয়াডাঙ্গা এর ফেইসবুক পেজ এ , আজকের চুয়াডাঙ্গা এর টুইটার এবং সাবস্ক্রাইব করুন আজকের চুয়াডাঙ্গা ইউটিউব চ্যানেলে