জীবননগরে কাঁচি নিয়ে মারামারি, ছাত্রলীগের সভাপতিসহ আহত ১২


আজকের চুয়াডাঙ্গা➤ জীবননগর প্রতিবেদক প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ৯, ২০২৩, ৬:০৫ অপরাহ্ণ
জীবননগরে কাঁচি নিয়ে মারামারি, ছাত্রলীগের সভাপতিসহ আহত ১২

জীবননগরে কাঁচি ফেরত দেয়া নিয়ে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতিসহ অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার (০৯ ডিসেম্বর) সকালে উপজেলার বাঁকা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাঁকা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসানের কাছ থেকে কয়েকদিন আগে একটি ধান কাটার কাঁচি নিয়েছিলেন একই গ্রামের বাঁকা পূর্বপাড়ার রাজীবের ছেলে রিফাত।সেই কাঁচি ফেরত না দেওয়ায় শনিবার সকালে মাঠে কাজে যাওয়ার সময় রিফাতের হাতে থাকা হাঁসুয়া কেড়ে নিয়ে হাসান বলেন, কাঁচি ফেরত না দিলে হাসুয়া দেবেন না।

রিফাত বিষয়টি পরিবারকে জানালে কয়েকজন নারী এসে হাসানকে মারধর করে। পরে হাসানের পরিবারের কয়েকজন সেখানে গেলে বাধে মারামারি। দুই পক্ষের মারামারিতে আহত হন অন্তত ১২ জন।

আহতরা হলেন- বাঁকা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান, তাঁর চাচা রহিম শেখের ছেলে ফিরোজ শেখ (৪২), তৌফিক (২৭), চাচা
হুমায়ুন শেখের ছেলে মো. ইমরান শেখ (১৮), তাঁর মা বেদানা খাতুন (৬০), আলাউদ্দিন শেখের ছেলে জাহাঙ্গীর শেখ (৫০) ও খোদাবক্স শেখের স্ত্রী রহিমা খাতুন।

এরমধ্যে তৌফিক ও জাহাঙ্গীর শেখের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাঁদের যশোর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ইমরান শেখ আহত অবস্থায় জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

অপর পক্ষের রিফাতসহ তাঁর পরিবারের ফরজ আলী মন্ডলের ছেলে সেলিম, মনিরুল ইসলাম, বাবুল আক্তার ও তাঁর ছেলে সাব্বির আহত হয়েছেন। এর মধ্যে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেলিম ও মনিরুল ইসলাম ভর্তি রয়েছেন। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

হাসপাতালে ভর্তি সেলিম জানান, আমি বাড়ি ছিলাম। হঠাৎ এসে হাসানের পরিবারের লোকজন আমাদের ওপর হামলা করে। এসময় মারামারি শুরু হয়। কাঁচি নিয়ে এর আগে সকালে হাসান ও রিফাতের ঝামেলা হয় বলে জানান তিনি।

এদিকে, এই মারামারির ঘটনায় জীবননগর থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছে দুই পক্ষ। জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন জীবননগর থানা-পুলিশসহ বাঁকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের প্রধান।

এ বিষয়ে জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস এম জাবীদ হাসান বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় দুই পক্ষই থানায় অভিযোগ করেছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আজকের চুয়াডাঙ্গা এর সংবাদ সবার আগে পেতে Follow Or Like করুন আজকের চুয়াডাঙ্গা এর ফেইসবুক পেজ এ , আজকের চুয়াডাঙ্গা এর টুইটার এবং সাবস্ক্রাইব করুন আজকের চুয়াডাঙ্গা ইউটিউব চ্যানেলে