চুয়াডাঙ্গায় মৃদু শৈত্য প্রবাহ, বেড়েছে দুর্ভোগ


আজকের চুয়াডাঙ্গা ➤ নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশের সময় : জানুয়ারি ২৪, ২০২৪, ২:১৮ অপরাহ্ণ
চুয়াডাঙ্গায় মৃদু শৈত্য প্রবাহ, বেড়েছে দুর্ভোগ

দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলা চুয়াডাঙ্গার ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ। তাপমাত্রার পারদ কমে যাওয়ার পাশাপাশি, হালাকা কুয়াশা ও উত্তরের হিমেল বাতাসে শীতের তীব্রতা বাড়িয়েছে কয়েকগুন। বুধবার (২৪ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় এ জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এসময় বাতাসের আর্দ্রতা ছিল ৯৫ শতাংশ।

মাঘের মাঝামাঝি এ শীতের তীব্রতায় নাকাল এ জেলার মানুষ। সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন ছিন্নমূল ও নিম্ন আয়ের মানুষ। এদিকে, তাপমাত্রা না বাড়া পর্যন্ত জেলার সকল প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা অফিস। আর মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে আজ পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা প্রথম শ্রেণির আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগার সূত্রে জানা গেছে, গত সপ্তাহে জেলায় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির পর থেকে তাপমাত্রার পারদ ক্রমেই নিচে নামতে থাকে। গত শনিবার (২০ জানয়ারি) এ জেলায় তাপমাত্রা ছিল ১০ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রোববার ১০ দশমিক ৭ ডিগ্রি ও সোমবার ৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বশেষ গত মঙ্গলবার এক দিনের ব্যবধানে তাপমাত্রা ৩ ডিগ্রি কমে দাঁড়ায় ৬ দশমিক ৬ ডিগ্রিতে। যা এ মৌসুমে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।

বুধবার সকালে জেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, কনকনে ঠান্ডায় মানুষ খুব একটা বাইরে বের হননি। হাতোগোনা কিছু মানুষ প্রয়োজনের তাগিদে বের হয়েছেন। বিভিন্ন মোড়ে ও চায়ের দোকানের পাশে শীত নিবারনের জন্য আগুন জ্বালিয়ে উত্তাপ নিচ্ছেন শীতার্ত মানুষ। হাসপাতালগুলোতে বেড়েছে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা। শিশু ও বৃদ্ধরা এ শীতে সবচেয়ে বেশি অসুস্থ হচ্ছেন।

চুয়াডাঙ্গা রেলবাজারের মাছ ব্যবসায়ী শ্রী অর্জুণ বলেন, রাত থেকে প্রচণ্ড শীত আর ঠান্ডা বাতাস বইছে। মাছ নিয়ে ব্যবসা করা মুশকিল হয়ে পড়েছে। তীব্র ঠান্ডায় হাত একদম বরফ হয়ে যাচ্ছে। বেচাকেনাও খুব একটা নেই। তাই আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে তাদের।

এদিকে, শৈত্য প্রবাহ চলায় তাপমাত্রা না বাড়া পর্যন্ত জেলার সকল প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার তবিবুর রহমান। তিনি বলেন, ‘আমরা নিয়মিত আবহাওয়া অফিস ও বিদ্যালয়ের প্রধানদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। আবহাওয়া পরিস্থিতির উন্নতি হলে বিদ্যালয়ে পুনরায় পাঠদান শুরু হবে।’

চুয়াডাঙ্গা আবহাওয়া অফিসের সিনিয়র পর্যবেক্ষক রাকিবুল হাসান জানান, বুধবার সকাল ছয়টায় এ জেলায় ৯ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। এসময় বাতাসের আর্দ্রতা ছিল ৯৬ শতাংশ। আর সকাল ৯টায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসের আর্দ্রতা ৯৫ শতাংশ।

আজকের চুয়াডাঙ্গা এর সংবাদ সবার আগে পেতে Follow Or Like করুন আজকের চুয়াডাঙ্গা এর ফেইসবুক পেজ এ , আজকের চুয়াডাঙ্গা এর টুইটার এবং সাবস্ক্রাইব করুন আজকের চুয়াডাঙ্গা ইউটিউব চ্যানেলে